জেনে নিন লবঙ্গের উপকারিতা ও অপকারিতা

লবঙ্গের রয়েছে নানা ঔষধি গুণ , যা পেট ফাঁপা, আমজ শূল, কাশি, পিপাসা রোগ, অরুচি, মাথার যন্ত্রণা, দাঁত ব্যথাসহ নানা রোগ উপশম করে ।

লবঙ্গের ঔষধি গুণ


আমরা প্রায় সকলেই ‘ লং ' এর সাথে পরিচিত । আর গৃহিণীদের তো না - চেনার কোনো কারণ নেই । ' লবঙ্গ'কেই অনেকে লং বলেন । এর আগার অংশ খাঁজকাটা , দেখতে অনেকটা ছোট নাকফুলের মতো । এর রং কালচে খয়েরি মাঝারি আকারের লবঙ্গ গাছ সাধারণত ১৫-২০ ফুট পর্যন্ত লম্বা হয়ে থাকে । লবঙ্গের গন্ধযুক্ত এ গাছের পাতা দেখতে অনেকটা বকুল গাছের পাতার মতো ।

জেনে নিন লবঙ্গ উপকারিতা ও অপকারিতা

ডালের আগার দিকে থোকা থোকা ফুল আসে । বোঁটাসহ ফুলের কুঁড়ি শুকিয়ে গেলেই তা লবঙ্গে পরিণত হয় । লবঙ্গের স্বাদ ঝাঁঝালো । এটি সাধারণত গরম মসলা হিসেবে বিভিন্ন ধরনের রান্নায় ব্যবহার করা হয় । যারা গান করেন , তারা গলার স্বর পরিষ্কার রাখার জন্য সবসময় একটি লবঙ্গ মুখে পুরে রাখেন । এমনকি মুখের দুর্গন্ধ থেকে রেহাই পাওয়ার জন্যও অনেকে লবঙ্গ মুখে পুরে রাখেন । লবঙ্গের রয়েছে নানা ঔষধি গুণ , যা নানা রোগ উপশম করে ।


পেট ফাঁপা

অনেক সময় পেট ফেঁপে থাকে ও পেটের ভেতর গড় গড় করে শব্দ হয় । ঘন ঘন পাতলা পায়খানা হয় । এ অবস্থায় কিছু পরিমাণ লবঙ্গ অল্প ভেজে গুঁড়া করে ৭ গ্রাম পরিমাণ সকাল বিকাল দু'বেলা পানিসহ খেলে এ সমস্যা ভালো হয়ে যাবে ।


আমজ শূল

পায়খানা হবার সময় পেটে মোচড় দিয়ে ব্যথা করলে তাকে আমজ শূল বলে । এ রকম হলে ২-৩ টি লবঙ্গ বেটে তাতে অল্প পরিমাণ গরম পানি মিশিয়ে সকাল বিকাল দু'বেলা খেতে হবে । এভাবে ৫ দিন খেলে রোগের উপশম হবে ।


কাশি

অল্প অল্প কাশির সাথে বুকে ব্যথা যদি থাকে , তাহলে নিউমোনিয়ার ভয় করাটাই স্বাভাবিক । এ রকম হলে ৪ গ্রাম লবঙ্গ গুঁড়া করে সামান্য গরম পানিসহ দু'বেলা খেলে কাশি ও বুকের ব্যথাটা চলে যাবে ।


পিপাসা রোগ

অনেকেরই পিপাসা রোগ থাকে । এতে ঘন ঘন পানির পিপাসা লাগে । ধরে নিতে হবে এরা প্রায়ই চোরা অম্বলে ভোগেন । এর পরিণতি খুব একটা ভালো না । এরকম দেখা গেলে ৪ গ্রাম পরিমাণ লবঙ্গ গুঁড়া করে সাথে ২-৪ ফোঁটা মধু মিশিয়ে সকাল বিকাল জিভ দিয়ে চেটে খেলে পিপাসা রোগ সেরে যাবে ।


অরুচি

কখনো কখনো ভাত , রুটি , মাছ , মাংস বা মিষ্টি জাতীয় খাবারসহ কোনো কিছুই খেতে ইচ্ছে করে না । সবকিছুতেই যেন অরুচি ভাব । এ রকম হলে লবঙ্গ ভেজে গুঁড়া করে নিন । ঐ গুঁড়া ৪ গ্রাম পরিমাণ হালকা গরম পানিতে মিশিয়ে নিন । খালি পেটে ও দুপুরে খাবারের পর খেলে খাবারে রুচি ফিরে আসবে ।


মাথার যন্ত্রণা

যে কোনো কারণে মাথা যন্ত্রণা হতে পারে । ধোঁয়া , রোদ , ঠাণ্ডা লাগার ফলে বা অন্য কোনো কারণে কখনো কখনো মাথায় যন্ত্রণা শুরু হয় । এছাড়াও নানা কারণে এ রোগ হতে পারে । এসব ক্ষেত্রে লবঙ্গ গুঁড়া ৪ গ্রাম পরিমাণ দিনে ২ বার , প্রয়োজনে ৩ বার গরম পানিসহ খেলে উপশম হবে ।


দাঁত ব্যথা

দাঁতে ব্যথা হলে প্রথমে গরম পানি দিয়ে মুখটা ধুয়ে ২/৩ টি লবঙ্গ থেঁতো করে দাঁতের গোড়ায় চেপে রাখলে ব্যথা তাড়াতাড়ি সেরে যাবে ।


মনে রাখবেন , যাদের গ্যাস্ট্রিক আছে তাদের লবঙ্গ খাওয়া ঠিক না । লবঙ্গ দীর্ঘদিন খেলে চুল পড়ে যায় । 


দেখলেন তো ! ঝাঁঝালো লবঙ্গের কেমন মিষ্টি মিষ্টি সুখ ! ছোট - খাটো অসুখে ব্যবহার করতে পারেন লবঙ্গের মতো উপকারী মসলা ।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন